সুমিত মোদক

 


মুক্ত বাতাস

সুমিত মোদক

অঙ্ক কষতে থাকে । মেলাতে পারে না । কাটাকুটি করে । যদিও এটা কাটাকুটির অংক নয় । খুব সহজ সরলও নয় । বেশ জটিল ।এতদিন বিষয়টায় কোন গুরুত্ব দেয়নি । আজ লক্ষ্য দিতে হলো । সময়ের দিকে । সমাজ সভ্যতার দিকে । এমনকি নিজের দিকে তাকিয়ে ।
এতদিন লড়াই ছিল নিজের সঙ্গে । প্রথম যৌবন থেকে । সে কারণে সবটা ছিল গোপনে ।আকর্ষণটা ছিল পুরুষের প্রতি । অসম্ভব ভালবাসা । অসম্ভব পুরুষ আকাঙ্ক্ষা । সমুদ্র মন্থনে । সেখান থেকে কি উঠে আসে ! গরল না অমৃত ! জানার ইচ্ছাটা কোনও দিন ছিল না । বুঝে নিতে চায়নি সে কি । বাইরে সেতো পুরুষ ।কিন্তু ভিতরটা যে নারী । সেটা যে সকলে বুঝবে না । যারা বুঝেছে তারা এসেছে কাছে । সঙ্গ দিয়েছ । দিয়েছে প্রেম । সমপ্রেম ।
আজ রকি সংসার পাততে চায় । অনিন্দর সঙ্গে । সেটা মেনে নিতে চায়না সমাজ । সেকারণে দুজনের চাকরি গেল । কেউ ঘর ভাড়া দিতে চায়না । চায়না স্বীকৃত দিতে । অথচ নিতে চায় কৌতুহল । যৌনতার গন্ধ ।
দুজনে উঠে বসে ট্রেনে । গন্তব্য জানেনা । ট্রেন ছেড়ে দেয় । জানালা দরজা দিয়ে হুটহাট ঢুকে পরে মুক্ত বাতাস ।