শরীর বিহীন শরীর ভাবে , কি ভাবে লেখা হবে ?

 

সুদীপ চক্রবর্তী


কবিতার মৃত্যু থেকে জীবন 

সুদীপ চক্রবর্তী 


এখন ধার করে কবিতা লিখি ,

আমার মধ্যে যে কবি ছিল সে মরে গেছে ,

তার কঙ্কালটাই এখন দাঁড়িয়ে আছে ।

আগে যখন রক্ত মাংসের শরীর ছিল ,

তখন সহজেই  কলম ধরে লিখতে পারতো ,

এখন যা ধরে সবই পিছলে পড়ে ,

মনে মনে দুঃখ পায় , কষ্ট পায় , করে শোক ,

কবিতা আসে তার কাছে জানায় ,

আবার লেখা শুরু হোক ।

শরীর বিহীন শরীর ভাবে ,

কি ভাবে লেখা হবে ? 

তবে কি অন্য শরীর ধার নিয়ে 

আমার হয়ে কেউ কি লিখে যাবে ? 

রাজি করানো আজকাল ভীষণ মুশকিল ,

স্বার্থ ছাড়া কেউ কিছু ভাবে না।

চেনা জানাতেও ভাবলেশহীন ,

তাই কবিতা লেখা নিয়ে সমস্যা অনেক ,

কবিতা কিন্তু নাছোড়বান্দা ,

সমাধানের চেষ্টা করে একেরপর এক ,

তারপর পাওয়া গেল এক বেওয়ারিশ দেহ ,

তার সাথে কথা বলার পর বললো ,

তার লাগবে ছোট্ট একটা গৃহ ।

সে ছিল ফুটপাতে ,

আসতে যেতে যে পারতো লাথি মারতো পাতে ,

গৃহ পেলে লিখবো তোমার জন্য ,

আমি খাবো আর ঘুমাবো ,

অভাব মিটিয়ে জীবনকে করবো ধন্য ।

সর্তে যদি রাজি থাকো ,

তবে শুরু হোক লেখা পড়া ,

জীবনের যে আসল সত্য বলে থাকে ,

সে পরবে ধরা ।

তারপর শুরু হবে জীবনের কবিতা লেখার সংগ্রাম ,

যে পথে গিয়ে অনেক কবিকেই মৃত্যু ডেকে এনেছে তার অন্তিম পরিনাম ।

সব বুঝে শুনে আমার হাত ধরো , 

আবার কবিতা লেখা শুরু করো ।