খুব করে খেলতাম ৷ প্রতিটাদিন যেন নতুন করে খেলতাম ৷ নতুন কিছু খেলতাম ৷

 

ময়ূরী মিত্র

খেলা যখন 

ময়ূরী মিত্র


ছেলেবেলায়  বসন্তের  বিকেল খুব চমৎকার লাগত আমার ৷   প্রেমপিরিত  বা পিরিতঋতুর গরিমা বোঝার বয়স তখনো হয়নি  ৷ কেবল মনে আছে , এইসময় বিকেলগুলো বেশ লম্বা আর চমৎকার লাগত ৷ হয়ত শীতের অকালসন্ধে নামাটাও বন্ধ হত বলে  ৷ বসন্তের বিকেলগুলোতে খেলতাম ৷ খুব করে খেলতাম ৷  প্রতিটাদিন  যেন  নতুন করে খেলতাম ৷ নতুন কিছু খেলতাম ৷ আসলে  বিকেলের এই অনেকক্ষণ ধরে রয়ে যাওয়াটাই নতুন নতুন খেলার জন্ম দিত ৷


বেলগাছিয়ায় আমাদের ভাড়াবাড়ির সামনের মাঠখানায় প্রচুর বড় বড় রোলার থাকত ৷ কেন  থাকত জানি না ,তবে ওর মধ্যে ঢুকে মজাসে খেলতাম এটা মনে আছে আমার ৷ বাইরের কমলা রোদ আর রোলারঘরের ভেতরের ছায়ায় আমার  শিশুবুক কেমন আনন্দে টনটন করে উঠত গো ৷ বারবার ঠান্ডা রোলারের মধ্যে শুয়ে শুয়ে গড়িয়ে চলতাম এপার থেকে ওপারে ৷ রোলারের দুপাশ দিয়ে ফাগুন বাতাস বইত  ঝরঝর করে ৷  শিউরে ওঠার ভাব করে মাঝে মাঝে চিল্লাতাম -- ওরে ও জগাই ,ও ছোটেলাল  ,  কোথায় গেলি সব ? আরে এ যে নদীতে ঢেউ লেগেছে রে ৷ চ পালাই ৷


পালাই বলতাম বটে ৷  তবে পালাবার ইচ্ছে থাকত না মোটেই ৷ অনেকসময় মাঠের এক গোছা ঘাস তুলে মুখে চোখে বোলাতে বোলাতে কি চিবোতে চিবোতে রোলার পরিক্রমা চলত আমার ৷ ইচ্ছে করে করে শরীরে এক পদ্মকোমল ভঙ্গি তৈরি করতাম  ৷ ইচ্ছে করে করে সন্ধে অব্দি গড়িমসি করতাম ৷ আচ্ছা কেন করতাম এসব ? ইচ্ছে করে মিছে খেলা  ? কেন করতাম ?  


আজো দেশ আছে ৷ 

বসন্ত যায় আসে ৷ 

 মিছে খেলা চলছে এবার দ্রুত ৷

পান মুখে ছুরি মারে ---আলাপও করে ৷ 

ফজিলের আলাপ ৷

গায়ে তাদের  কালো ছোপ ৷ 

তারা কেউ সাথী নয় ৷



ময়ূরী মিত্র 


ময়ূরী মিত্র