নাতনী নিয়েছে পড়াশোনা করার ফাঁকে ফাঁকে সাধ্যমত গৃহকর্মের ছোট ছোট কাজের ভার।

 

বিকাশ চন্দ্র মণ্ডল

শান্তির নীড়

 বিকাশ চন্দ্র মণ্ডল




সুখের তরে বেঁধেছি যে ঘর

মনেতে সুখ তো নাহি পাই।

ছেলে বৌমাদের সংসারে থেকে

নিয়েছি যে তাই একাকীত্বে ঠাঁই।

নিয়ত চেঁচামেচি, ঝগড়া ঝাটি

আর তো ভালো লাগে না আমার।

মুঠো দুই অন্ন জুটানোর তরে জঠরে

কত করি আর ছল, চাতুরী বাহানা।

মনকে শান্ত করেছি, ভুলচুক শুধরে

নিতে হবে আমার ও সকলের।

আমিও আর আগের মতো অযথা

গালমন্দ, দোষারোপ করিনা বৌমাদের

হাতাহাতি করে সকলে সকলের করলে কাজ।

শান্তির বাতাস যেন বইবে গৃহে গৃহে

শান্তির নীড় হবে গৃহাঙ্গণ তার। 

ভালো হয়েছে, এখন দেখি মোর প্রতি

বৌমাদের ব্যবহার,

ওরাও তো মেয়েই তো আমার।

অসুস্থ হয়েছে নাতি নাতনীদের ঠাকুমা যে

আজ বিশ্রামে রেখেছে আমারে।

নাতনী নিয়েছে পড়াশোনা করার ফাঁকে ফাঁকে

সাধ্যমত গৃহকর্মের ছোট ছোট কাজের ভার।

এভাবেই প্রতিটি গৃহে একে অপরের

ভালোবাসার দরকার, বেঁচে থাকুক সমাজে আজ হারিয়ে যাওয়া একান্নবর্তী পরিবার।



    

বিকাশ চন্দ্র মণ্ডল

গদীবেড়ো (রঘুনাথপুর) পুরুলিয়া, প বঙ্গ