এলেই যখন আজ দীনের কুটিরে ---, চিনে যাও তবে এই বিদূষি নারীরে l

 

সোমা দাস

"আমি আর তুমি "

সোমা দাস 


সেই "আমি " টা আজ আর নেই!

যাকে একদিন দ্বার হইতে ফিরিয়ে দিয়েছিলে,

শুনতে চাও নি, কি বলতে চেয়েছিলো !

নির্মম অপমানকে সাথী করে ফিরে এসেছিলো--,

রুদ্ধ দ্বারে কাটিয়েছিল বহুকাল,

দেখেনি বহু বসন্তের সকাল l

সেই "আমি "টা আজ আর নেই l

যাকে বিনা প্ররোচনায় ঠকিয়েছো বহুবার --,

তথাপি মুখে "রা "-নেই তার l

যদি কষ্ট পাও!ভুল বুঝো তাকে!

তাই নীরবে সহিতে হয়েছে সকল বেদনার ভার l

জানতেও চাও নি সেদিন কতোটা যন্ত্রনা !!

উপশমের বিনিময়ে করেছো তিরস্কার l

অভিজাত্যের অহংকার আর বিদ্যার দাপটে --,

চূর্ণ -বিচূর্ণ করেছিলে অবলার মনোবিহার l

মিথ্যা অপবাদে জব্দ করেছিলে তাকে,

সহিতে হয়েছে সব নীরবে নিভৃতে l

সেই "আমি " টা আজ আর নেই ll


    কুড়িটা বসন্ত পেরিয়ে আজ ফিরিলে মোর দ্বারে,

   ভেবেছো সেই "আমি "টা লুটাবে দীন ভরে !

    এলেই যখন আজ দীনের কুটিরে ---,

    চিনে যাও তবে এই বিদূষি নারীরে l

    নেত্র হইতে ঝরে না আর সিক্ত মুক্ত ধারা l

    তার নেত্র দ্বয়ে প্রজ্জলিত রবিকর সুধা

    বাক্যবানে বিগলিত পুঞ্জিত  লাভা!

    নীরবে সহিতে হইবে তোমাকে,

   যতোটা অবহেলা করেছিলে তাকে,

  ততোটাই পুড়িতে হইবে নিয়মের বাঁকে l

  সর্ব দিন কাহারো সমান নাহি যায় l

  জীবন যৌবন সব ধূলাতে লুটায় ll

      

   কোথা গেলো সে ঐশ্বর্য্য!

   কোথা অহংকার !

   ফিরিছো আজ দ্বারে দ্বারে --

   লয়ে মনো ভার!

  তোমার "তুমি "টা আজ বড় অসহায় l

  আমার "আমি "তে পূর্ণ শ্রদ্ধা -ভালোবাসায় ll