যার শীতল জল আজ ও ততটা সচ্ছ,

 

webtostory

বাঁধনহারা_শৈশব_

 কে দেবে দাস


আমি, আনন্দে উদ্বেলিত হই তখন, যখন শ্রাবণের বারিধারা আমার গ্রামকে ভাসিয়ে দিয়ে যায় প্লাবনের শ্রোতে।

আর,আনন্দিত  হই তখন,যখন কৃষকের মুখে হাসি ফোটে নবান্নের ঘ্রাণে,কচি কচি প্রাণে।।

আর,আমি আনন্দিত হই তখন,যখন বসে থাকি ঘন্টার পর ঘন্টা ঝিলের ধারে, বনবিথীর পাড়ে,

যার শীতল জল আজ ও ততটা সচ্ছ,নেই কোন কোলাহল, দ্বেষ, হিংসা, ঘৃনা কিংম্বা কালের মলিনতা।

আমি আনন্দিত হই তখন,যখন ছায়া ঘেরা আম্রকূজ্ঞে ঘুরে বেড়ায় মনের আনন্দে,

যেখানে গেঁথে আছে আজ ও আমার দামাল শৈশব।।

আমি, ঘূরে বেড়ায় মনের আনন্দে মুক্ত বিহঙ্গের মত,দূর দিগন্তে ছড়িয়ে থাকা রাশী রাশী সোনাঝড়া ধানের ক্ষেতে পৌষের শেষে।

মিলিয়ে নেই, দু একটি ধানের শীষে মা লক্ষ্মীর পদচিহ্ন,তুলে রাখি নতমস্তকে চরণ চিহ্ন দুটি গোয়ালের ঘরে, সারা বছরের তরে,সুখে রাখে যেন মা বছর ভরে।।